বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন । রিপোর্ট তৈরিতে প্রতিবেদকের কাজ

জুয়েল দাস

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন কী ? বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন তৈরি করতে একজন প্রতিবেদককে যে কাজগুলো করতে হয়

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এখন আমাদের জীবনে এমন ভাবে জড়িয়ে আছে যে, একে হালকাভাবে নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই । কিন্তু অনেক সাংবাদিক এ বিষয়ে প্রতিবেদন তৈরির ক্ষেত্রে সংকোচ বোধ করেন । তারা মনে করেন যে, এই বিষয়টি খুবই জটিল এবং পাঠকরাও এতে তেমন আগ্রহী নন । আসেলে ব্যাপারটি ঠিক তা নয় । যথার্থ প্রস্তুতি ও প্রয়োজনীয় নিয়ম- নীতি অনুসরণের মাধ্যমে এই বিষয়ে লেখা প্রতিবেদনকে সহজেই আকর্ষণীয় করা যায় । একজন প্রতিবেদকের আন্তরিকতা থাকলে এটি সম্ভব হয়ে ওঠে ।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কী

পর্যবেক্ষণ , পরিমাপ এবং পরীক্ষার মাধ্যমে বিশ্ব ও এর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে করা মানুষের সংগঠিত গবেষণাই হচ্ছে বিজ্ঞান । বিজ্ঞানীরা এমন নিয়ম খোঁজার চেষ্টা করেন, যেগুলো বিশ্ব কে পরিচালনা করে ।

অন্যদিকে প্রযুক্তি হচ্ছে বিজ্ঞানের ব্যবহারিক প্রয়োগ ।উদাহরণস্বরূপ- নিউটনের মাধ্যাকর্ষণ শক্তি আবিষ্কার হচ্ছে বিজ্ঞান , আর এই শক্তির বিষয়টি মাথায় রেখে তৈরি করা রোবট হচ্ছে প্রযুক্তি ।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন কী

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন গবেষণা ,ব্যাখ্যা , গবেষক বা সংস্থার কর্মকাণ্ড ইত্যাদি’ নিয়ে সংবাদপত্র বা গণমাধ্যমে প্রকাশ উপযোগী যে সংবাদ প্রতিবেদন তৈরি করা হয় তাই হচ্ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন । উদাহরণস্বরূপ – ছত্রাকের জীবনরহস্য উন্মোচন নিয়ে বাংলাদেশি বিজ্ঞানী মাকসুদুল আলমের করা গবেষণা নিয়ে বিজ্ঞান প্রতিবেদন করা যাবে ।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন তৈরির জন্য একজন প্রতিবেদকের কাজ

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক শেখ প্রতিবেদন তৈরির জন্য একজন প্রতিবেদককে নিম্নোক্ত কাজসমূহ করতে হয়-

১. মৌলিক বা প্রাথমিক জ্ঞান রাখা

২ . বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে পড়াশোনা করা

৩ . গবেষক, বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদদের সাথে যোগাযোগ রাখা

Advertisement

৪ . আস্থা তৈরি করা

৫ . সত্য অনুসন্ধান করা

৬ .সন্দেহপ্রবণ হওয়া

৭ . সংবাদ সংগ্রহ করা

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রতিবেদন

১. মৌলিক বা প্রাথমিক জ্ঞান রাখা

উদাহরণস্বরূপ – মানবদেহের মৌলিক অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সম্পর্কে জ্ঞান রাখা । প্রতিবেদককে রক্তের জটিল উপাদান ও এগুলোর গঠন সম্পর্কে জ্ঞান রাখার দরকার নেই । কিন্তু এই বিষয়টি জানা দরকার যে, রক্তের মাধ্যমে শরীরে বিভিন্ন পুষ্টি ও রাসায়নিক উপাদান সঞ্চালিত হয় ।

২ . বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ে পড়াশোনা করা

বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি প্রতিনিয়তই বিকশিত হচ্ছে । তাই প্রতিবেদকের প্রয়োজন নিজেকে সবসময় আপ টু ডেট রাখা । এ জন্য বিভিন্ন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক প্রবন্ধ পড়া যায় । বিজ্ঞানের মৌলিক বিষয়ের ওপর বিভিন্ন বই পড়া যায় । উদাহরণস্বরূপ – এক্ষেত্রে এনসাইক্লোপিডিয়া বেশ বিষয়ক হবে ।

৩ . গবেষক, বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদদের সাথে যোগাযোগ রাখা

পরামর্শ ও বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক টার্ম বা শব্দ বোঝার জন্য, কোন সিস্টেমের কর্মকাণ্ড ব্যাখ্যা করার জন্যও সাহায্য নিতে হয় ।

৪ . আস্থা তৈরি করা

অনেক বিজ্ঞানী সাংবাদিকদের ওপর আস্থা রাখতে চান না । কারণ, তারা মনে করেন সাংবাদিকরা তাদের বৈজ্ঞানিক কর্মকাণ্ডকে যথাযথভাবে তুলে ধরতে পারবে না । অথবা তারা তা ভুল ভাবে ব্যাখ্যা করতে পারে । একজন সাংবাদিককেএক্ষেত্রে আস্থা তৈরি করতে হবে । আর এজন্য সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সাক্ষাৎকার নেওয়ার আগে একজন সাংবাদিকের পটভূমি জেনে যেতে পারেন । এতে করে ওই বৈজ্ঞানিকের আস্থা অর্জন করা যেতে পারে ।

৫ . সত্য অনুসন্ধান করা

একটি বিষয়ে একাধিক বিজ্ঞানী কাজ করে থাকতে পারেন । কিন্তু তারা ভিন্ন ভিন্ন ফলাফল পেতে পারেন । যার যেকোনো একটি সত্য হতে পারে । বা কোনটিই সত্য নাও হতে পারে । এক্ষেত্রে সাংবাদিককে সাবধানতার সাথে সত্য ফলাফল বের করে আনতে হবে । আর এজন্য তিনি গবেষক বা বিজ্ঞানীদেরকে তাদের দাবি সম্পর্কে বিভিন্ন প্রমাণিত প্রশ্ন করতে পারেন । কিংবা তিনি সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের অন্য কোন বিশেষজ্ঞের সাথেও কথা বলতে পারেন

৬ .সন্দেহপ্রবণ হওয়া

পৃথিবীর ঘূর্ণন নিয়ে গ্যালিলিও যদি তার সময়ের অন্য বিজ্ঞানীদের সম্পর্কে সন্দেহপ্রবণ না হতেন তবে তিনি জানতে পারতেন না যে পৃথিবীই সূর্যের চারদিকে ঘুরছে

আরো জানুন…….ব্যাখ্যামূলক রিপোর্টিং কি? ব্যাখ্যামূলক রিপোর্ট চেনার উপায়

৭ . সংবাদ সংগ্রহ করা

সবকিছুর পর একজন প্রতিবেদককে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সংবাদ সংগ্রহ করতে হয় । এক্ষেত্রে নিম্নোক্ত কয়েকটি বিষয়ে মনোযোগ দিতে হবে

ক. মানুষকে আলোকপাত করা

সম্ভব হলে মানুষের দিক থেকে অর্থাৎ Human angle থেকে প্রতিবেদন করতে হবে । Human angle হতে পারে =

-কারা সংশ্লিষ্ট বৈজ্ঞানিক বা প্রাযুক্তিক অগ্রগতি দ্বারা প্রভাবিত হবে, তাদের উপর আলোকপাত করা

-সংশ্লিষ্ট অগ্রগতির সুবিধাসমূহ কারা ব্যবহার করবে

যে সকল বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদ বৈজ্ঞানিক ও প্রাযুক্তিক সুবিধাসমূহ আবিষ্কার বা বিকাশ সাধন করেছেন তাদের অ্যাঙ্গেল থেকেও সংবাদ সংগ্রহ করা যায় । এতে করে প্রতিবেদন আগ্রহোদ্দীপক হয়ে উঠবে ।

খ. বিস্তারিত বিষয় বোঝা

গ . সংবাদ চেতনা

বিজ্ঞানীরা তাদের গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কারকেও অনেক সময় সংবাদযোগ্য বিষয় ভাবেন না । তাই একজন প্রতিবেদকের সংবাদ চেতনা থাকতে হয় । যা তাকে কোনটি সংবাদ কিংবা কোনটি সংবাদ নায়, তা খুঁজে নিতে সাহায্য করে ।

ঙ. বস্তুনিষ্ঠতা

বিজ্ঞানের ইতিবাচক ও নেতিবাচক দুই দিক রয়েছে । প্রতিবেদকের উচিত হবে বস্তুনিষ্ঠভাবে উভয় দিকই তুলে ধরা ।

লেখক : সাবেক শিক্ষার্থী

যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ , চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

100% LikesVS
0% Dislikes

Write a Comment

Share It