সংবিধানে গণমাধ্যম সম্পর্কিত বিধান

Fareeha Tasrin Reeha

সংবিধানে গণমাধ্যম সম্পর্কিত বিধান

Provisions regarding media related to the constitution of Bangladesh

According to the Constitution of the People’s Republic of Bangladesh (Act no. of 1972, part 3, Fundamental Rights) Freedom of thought and conscience and of speech

Article 39:

 1) Freedom of thought and conscience is guaranteed.

 2) Subject to any reasonable restrictions imposed by law in the interest of the security of the state, friendly relations with foreign States, public order, decency or morality, or in relation to contempt of court, defamation or incitement to an offence-

  1. the right of every citizen to freedom of speech and expression and

      b)  freedom of the press, are guaranteed.

বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ 39 বাকশক্তির স্বাধীনতা সম্পর্কিত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদ।

বাংলাদেশের সংবিধানে গণমাধ্যম সম্পর্কিত বিধান

সংবিধানে গণমাধ্যম সম্পর্কিত বিধান

KNOW MORE…… সংবিধানের ৩৯ তম অনুচ্ছেদ । 39th paragraph constitution

বাকশক্তি স্ বাধীনতা বলতে বুঝায় ব্যক্তিগত চিন্তা এবং ভাবনা কে প্রকাশ করা, অন্যের কোনরকম হস্তক্ষেপ ছাড়া। এটা লিখিত মৌখিক বা অন্য যেকোনো উপায়ে প্রকাশ করা যেতে পারে। প্রতিটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সংবিধানে এই অধিকারটি সুনিশ্চিত করা উচিত।

Advertisement

যুক্তরাষ্ট্র সংবিধানের সংশোধনীর মাধ্যমে বাকস্বাধীনতার অধিকার সুনিশ্চিত করেছে। বাংলাদেশের সংবিধান বাক স্বাধীনতার অধিকার সুনিশ্চিত । স্বীয় পূর্ণতা এবং সত্যের প্রকৃতিকে পূর্ণতা প্রদান করার জন্য বাকস্বাধীনতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

সামাজিক পরিবর্তন এবং স্থায়িত্বের মধ্যে একটা কারণ মুলক ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য প্রকাশভঙ্গি এবং বাক স্বাধীনতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশ হিসেবে কাজ করতে পারে।

Cooray stated,” the freedom of speech is the single most important political rights of citizens, although private property is required for its operation.Without free speech, no political action is possible and no resistance to injustice or operation is possible. Without free speech elections would have no meaning at all. Policies of contestants become known to the public and become responsive to public opinion only by virtue of free speech. Between elections the freely expressed opinions of citizens help to restrain oppressive rule. Without this freedom it is futile to expect political freedom or consequently economic freedom. Thus,freedom of speech is the sine qua non of a democratic society.”

কিন্তু কিছু ক্ষেত্রে রাষ্ট্রের নিরাপত্তার স্বার্থে সংবিধানে বাকস্বাধীনতার এবং প্রকাশভঙ্গি ক্ষেত্রে কারণসমূহ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এক্ষেত্রে রাষ্ট্রের নিরাপত্তা বলতে বুঝায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং ভয়াবহ অবস্থা উদাহরণস্বরূপ বিপ্লব, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আসন্ন যুদ্ধ, বিদ্রোহ, জাতীয় নিরাপত্তার খাতিরে তৈরি কোন আইন অমান্য করা, বেআইনি সমাবেশ, দাঙ্গা।

কাজেই বলা যায়,বাকস্বাধীনতা শুধু যে গুরুত্বপূর্ণ তা নয় বরং এটা অন্যের অধিকার রক্ষার্থে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বাকস্বাধীনতা তখনই সঠিকভাবে প্রকাশ করা সম্ভব যখন তা আইনের গন্ডির ভিতরে থেকে, নিজস্ব দায়িত্বে এবং অন্যের অধিকার এবং মর্যাদার প্রতি লক্ষ্য রেখে পরিচালনা করা যায়।

Advertisement

The key points of exercising freedom of expression are “within the limits of the law”, “with personal responsibility” and “based on respect for others rights and sensibilities”.

বাক স্বাধীনতাকে কোনভাবেই দৃঢ় হস্তে বাধা প্রদান করা উচিত না।গণমাধ্যমকে সরকারের বিভিন্ন ধরনের কর্মকান্ডের ব্যাপারে মতামত প্রকাশ করতে দেওয়া উচিত। সরকারি কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে সমালোচনা কেবলমাত্র তাদের নিজস্ব উন্নতির জন্যই এবং এটা একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের অধিকার। কাজেই সহিংসতা, আইনানুগ হেনস্থা, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে নেতিবাচক আচরণ অচিরেই বন্ধ করা উচিত। কারণ কেবলমাত্র গণমাধ্যমই পারে সব ধরনের তথ্য সাধারন জনতার কাছে পৌঁছে দিতে।

লেখক : সাবেক শিক্ষার্থী
আইন অনুষদ , চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

50% LikesVS
50% Dislikes

Write a Comment

Share It