সাক্ষাৎকার পরিকল্পনা । সাক্ষাৎকার গ্রহণের জন্য পরিকল্পনা ।

তাসলিমা ইরিন

সাক্ষাৎকার পরিকল্পনা । সাক্ষাৎকার গ্রহণের জন্য পরিকল্পনা


সংবাদে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হল সাক্ষাৎকার। পত্রিকার পাতায় বিভিন্ন সংবাদে অথবা টেলিভিশনে আমরা সর্বদাই সাক্ষাৎকার দেখে থাকি। একে সংবাদের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে উল্লেখ করলেও খুব বেশি বাড়িয়ে বলা হবে না।

একজন প্রতিবেদক যখন সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে যান, তার পূর্বেই তাকে এটি সম্পর্কে একটি ছক কষে নিতে হয়। প্রতিবেদক সাক্ষাৎকারে কোন প্রশ্ন ভুলে গেলে কিংবা সকল প্রশ্নের উত্তর যথাযথ ভাবে যেন সংগ্রহ করতে পারেন তাই পরিকল্পনা গ্রহণ করা জরুরি। সাক্ষাৎকার গ্রহণে পরিকল্পনা অত্যাবশকীয় বিষয় হিসেবে বিবেচিত হয়।


সাক্ষাৎকার পরিকল্পনায় প্রধানত পাঁচটি বিষয়কে গুরুত্বের সাথে আলোচনা করা হয়।

এগুলো হল-


১. প্রেক্ষাপট বা পূর্বধারণা সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করা
২. সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্য নির্ধারণ করা
৩. সাক্ষাৎকার প্রদানকারী নির্বাচন করা
৪. সাক্ষাৎকার প্রদানকারীর প্রস্তুতি
৫. প্রশ্নের ধরন ও গঠন নির্ধারণ করা

নিম্নে এগুলো সম্পর্কে আলাপ আলোচনা করা হল-

সাক্ষাৎকার পরিকল্পনা
সাক্ষাৎকার পরিকল্পনা

১. প্রেক্ষাপট বা পূর্বধারণা সম্পর্কে জ্ঞান লাভ করা


যেকোন বিষয়ে কাজ করার জন্য ওই বিষয়ের পূর্বজ্ঞান সম্পর্কে ধারনা লাভ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যে ইস্যুতে একজন প্রতিবেদক সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে মনস্থির করেন, পূর্বে ওই ধরনের ইস্যুতে কী ধরনের প্রতিবেদন বা সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়েছে এসব বিষয়ে তাঁকে পড়াশোনা করতে হবে। এ বিষয়ে ধারণা লাভ করার পরই তিনি একটি দিক নির্দেশনা পাবেন, যা কাজে লাগিয়ে তিনি একটি দুর্দান্ত প্রতিবেদন লিখে ফেলতে পারেন।

সফল সাক্ষাৎকার পরিচালনার জন্য সাক্ষাৎকার প্রদানকারীর বিশ্বাস ও আস্থা অর্জন করা অত্যন্ত জরুরি বিষয়। খেয়াল রাখতে হবে যে সাক্ষাৎকার প্রদানকারী এটিকে যেন কোনভাবেই তার সময়ের অপচয় মনে না করেন। তাই, ওই ব্যক্তি ও তাঁর প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে যতটা সম্ভব ধারনা নিয়ে স্পটে যেতে হবে। এই ধারণা বিভিন্নভাবে লাভ করা যায়। যেমন-
ক) ওয়েবসাইট
খ) বার্ষিক প্রতিবেদন
গ) প্রকাশনা
ঘ) বিজ্ঞাপন।

২. সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্য নির্ধারণ করা


বলা হয়ে থাকে যে, উদ্দেশ্যবিহীন কোন কিছুই তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারে না। সাক্ষাৎকার গ্রহণও এর ব্যতিক্রম নয়। সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্য নির্ধারণ একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তথ্য সংগ্রহের সময় নানাভাবে বিভিন্ন ধাপে সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হয়। সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্যই কোন ধাপে কীভাবে তা পরিচালনা করা হবে তা নির্ধারণ করে । সাক্ষাৎকার পরিকল্পনা গ্রহণের সময় প্রতিবেদককে অবশ্যই সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্য নির্বাচন করতে হবে। এই সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে তিনি কোন্ কোন্ বিষয় গুলোকে তুলে ধরতে চান, কোন্ দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চান, কী ধরনের পরিবর্তন আশা করেন ইত্যাদি বিষয়গুলো তিনি এখানেই ঠিক করে ফেলবেন। যেন পরবর্তীতে প্রশ্ন করতে গিয়ে তিনি লক্ষ্যচ্যুত না হয়ে যান। আপনি কী ধরনের তথ্য সংগ্রহ করতে চান, তাই আপনার সাক্ষাৎকারের উদ্দেশ্য নির্ধারণ করে দেবে।

আরো জানুন………..সাক্ষাতকার কি ? সাংবাদিকতায় সাক্ষাতকার গ্রহণে প্রয়োজনীয় নির্দেশিকা

৩. সাক্ষাৎকার প্রদানকারী নির্বাচন করা

Advertisement


কার কাছ থেকে সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হবে এটি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। যখন আপনি কোন একটি বিষয় বা ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইবেন, আপনি নিশ্চয় এমন ব্যক্তির কাছেই তা জানতে চাইবেন যিনি ওই বিষয়ে বিশদভাবে জানেন, বোঝেন। সংবাদে সাক্ষাৎকার গ্রহণের সময়ও প্রতিবেদককে মাথায় রাখতে হবে যে তিনি কার কাছ থেকে এটি গ্রহণ করবেন। এমন ব্যক্তির কাছে তথ্য সংগ্রহের জন্য যেতে হবে যার কাছে আমি যে ধরনের তথ্য সংগ্রহ করতে চাইছি তা পাওয়া যাবে। কোন প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে সাক্ষাৎকার গ্রহণ করতে হলে এমন ব্যক্তির কাছে যেতে হবে যিনি সরাসরি ঐ প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা কাজের সাথে যুক্ত আছেন।

৪. সাক্ষাৎকার প্রদানকারীর প্রস্তুতি


যে উপায়েই সাক্ষাৎকার গ্রহণ করা হোক না কেন, সাক্ষাৎকার প্রদানকারীর প্রস্তুতি খুবই জরুরি বিষয়। সাক্ষাৎকারের বিষয়, সময়, স্থান ইত্যাদি বিষয়গুলো পূর্বেই তাঁকে অবহিত করতে হবে। সাধারণত ফোন কল, ম্যাসেজ অথবা ইমেইলের মাধ্যমে এটি করা হয়ে থাকে। গুরুত্বপূর্ণ কোন নথি সংগ্রহের বিষয় থাকলে সেক্ষেত্রে প্রতিবেদক আগেই তাঁর প্রশ্ন গুলো পাঠিয়ে দিতে পারেন। এর ফলে তথ্য প্রদান করতে তুলনামূলক সহজ হয় সাক্ষাৎকার প্রদানকারীর পক্ষে।

৫. প্রশ্নের ধরন ও গঠন নির্ধারণ করা


সফল সাক্ষাৎকার পরিচালনার জন্য অপর একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল প্রশ্নের জিজ্ঞাসার ধরন। ওপেন এন্ডেড অথবা ক্লোজ এন্ডেড যে ধরনের প্রশ্নই জিজ্ঞাসা করা হোক না কেন তা পূর্বেই নির্ধারণ করে রাখা উচিত। এছাড়া কোন প্রশ্নের পর কোন প্রশ্ন করা হবে এর উপর নির্ভর করে সাক্ষাৎকার প্রদানকারীর প্রতিক্রিয়া। তাই এই ধাপেই তা নির্ধারণ করে রাখা উচিত।

লেখক : শিক্ষার্থী
এমএসএস ( ২২ তম ব্যাচ )
যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

50% LikesVS
50% Dislikes

Write a Comment

Share It