Like our Facebook Page

Advertisement

এমবেডেড জার্নালিজম বা প্রোথিত সাংবাদিকতা কী?

এমবেডেড জার্নালিজম

এমবেডেড জার্নালিজম বা প্রোথিত সাংবাদিকতা কি?



যুদ্ধের সংবাদ সংগ্রহ করার জন্য যে সকল সাংবাদিক কে সৈনিকদের সাথে যুদ্ধের ময়দানে পাঠানো হয় তাদের এমবেডেড সাংবাদিক বলে। আর যুদ্ধের ময়দানে তাদের এরূপ সাংবাদিকতার ধরণকে এমবেডেড জার্নালিজম বা প্রোথিত সাংবাদিকতা বলে।
এমবেডেডড জার্নালিজম শব্দটি প্রথম ব্যবহার করা হয় ২০০৩ সালে। যখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যখন ইরাক আক্রমণ করে । এবং সে সময় এমবেডেড জার্নালিজম শব্দটি সকলের নিকট পরিচিত হয়ে ওঠে বা পরিচিত করে তোলা হয় ।
যদিও শব্দটি সাংবাদিক ও সেনাবাহিনীর অনেক ঐতিহাসিক কাজের ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হতে পারে। তবে তা ভিন্ন বিষয় ।
২০০৩ সালের মার্চে ইরাক যুদ্ধ শুরু হয়। এ সময় প্রায় ৬-৭ শ সাংবাদিক ও ফটোগ্রাফার ইরাক যুদ্ধে সংবাদ কাভার করে। এ রিপোর্টারদের সাথে মার্কিন বাহিনীর চুক্তি হয় যে, তারা মার্কিন বাহিনীর অবস্থান , ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং অস্ত্র সম্পর্কিত বিষয়গুলো গোপণ রাখবেন। যুদ্ধে যাওয়ার আগে ২০০২ সালে সাংবাদিকদের যুদ্ধকালীন সময়ের জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।
Philip Smucker ছিলেন ইরাক যুদ্ধের প্রথম এমবেডেড জার্নালিস্ট। যদিও তিনি পেশাগত দিক দিয়ে পূর্ণ সাংবাদিক বা রিপোর্টার ছিলেন না । তিনি ছিলেন একজন ফ্রিলেন্সার জার্নালিস্ট বা নাগরীক সাংবাদিক ।

সাংবাদিকতার এরকম ধরণ কে অনেকে সমালোচনা করেছেন । অনেকে  এমবেডেড জার্নালিজম শব্দটা কে প্রচারণার অংশ বলেও সমালোচনা করেছেন।
Reference:
1.


লেখক : শিক্ষার্থী
৪র্থ বর্ষ( ২১ তম ব্যাচ )
যোগাযোগওসাংবাদিকতা বিভাগ
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
1Like
0Dislike
100% LikesVS
0% Dislikes
Saiful Islam: I am Md. Saiful Islam, Founder of CAJ Academy. I Have Completed my Graduation and Post Graduation from the Department of Communication and Journalism, University of Chittagong. Follow me on facebook : facebook.com/saifcajacademy , Instagram : instagram.com/saif_caj_academy
Advertisement
Related Post