Like our Facebook Page

Advertisement

রেডিওর জন্য বিজ্ঞাপন লেখার নিয়ম

রেডিওর জন্য বিজ্ঞাপন লেখার নিয়ম

টেলিভিশন যন্ত্রটি বাজারে আসার পর ধারণা করা হয়েছিল রেডিও এর দিন বুঝি শেষ। কিন্তু এমন ধারণার মুখে কালি লেপে দিয়ে রেডিও এখনো বহাল তবিয়তেই নিজের জায়গায় ধরে রেখেছে। আমাদের কথা বলার বিষয় রেডিও এর বিজ্ঞাপন লেখা। কিন্ত তার আগে আমরা একটা আদর্শ বিজ্ঞাপন হতে গেলে তা কী কী দাবি করে সে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবো।

Advertisement

Vilanilam ও varghese এর মতে একটা ভালো বিজ্ঞাপন হল।

(১) সৎ- এটি পণ্যকে বিশ্বাসযোগ্য উপায়ে দর্শক বা শ্রোতার কাছে উপস্থাপন করবে। কোনরকম প্রতারণা আশ্রয় নেবে না।

(২) স্পষ্ট – সম্ভাব্য ক্রেতার কাছে পণ্যের একটা ভালো ভাবমূর্তি তৈরি করবে। দর্শক বা শ্রোতা যেন প্রতিষ্ঠানকে নির্ভরযোগ্য মনে করেন।

(৩)প্ররোচক – একটা ভালো বিজ্ঞাপন দর্শক-শ্রোতাকে পণ্য বা সেবা কিনতে প্ররোচিত করবে। দর্শক-শ্রোতা যেন মনে করেন পণ্যটি ব্যবহার করলে তাদের জন্য ভালো হবে।

(৪) সহজবোধ্য – দর্শক-শ্রোতা যেন সহজেই বুঝতে পারে এই বিজ্ঞাপনে তাদের জন্য কী আছে। ” আমার জন্য কী আছে? ” যত সহজে এই প্রশ্নের উত্তর পাবে কিনতেও তত আগ্রহী হবে।

(৫) নির্দিষ্ট – পণ্যের কোন নির্দিষ্ট দিক তুলে ধরবে এবং সেই দিকের সপক্ষে যথাযথ তথ্য দেবে।

(৬) প্রত্যেকের সাথে কথা বলা – ভাল বিজ্ঞাপন অবশ্যই প্রত্যেক দর্শক -শ্রোতাকে আলাদাভাবে সম্বোধন করবে। সম্ভাব্য গ্রাহককে জানাবে পণ্যটি তার সমস্যা কিভাবে সমাধান করবে বা তার চাহিদা কিভাবে পূরণ করবে।

(৭) প্রতিশ্রুতি দেবে – দর্শক শ্রোতাকে প্রতিশ্রুতি দেয়,সেটা যৌক্তিক বা আবেগি হোক পণ্য সম্পর্কিত প্রতিশ্রুতি করে।

(৮)পণ্যের একটা দৃঢ় ধারণা তৈরি করে- ভোক্তাদের মনে পণ্য সম্পর্কে একটা দৃঢ় ধারণা তৈরি করবে।একবার দৃঢ় ধারণা তৈরি করা গেলে তা টিকে থাকে।

(৯)অপ্রত্যাশিত কিছু করে – পণ্যের বিশেষ ও অত্যাবশ্যকীয় দিকগুলো চমকপ্রদ উপায়ে তুলে ধরবে।

(১০) অনুপ্রাণিত করবে – আদর্শ বিজ্ঞাপন সেটাই যা শেষ হবার পরও মানুষ মনে রাখবে ও এর দ্বারা অনুপ্রাণিত হবে।

রেডিওর জন্য বিজ্ঞাপন

Learn More ….বিজ্ঞাপন  কপি র বৈশিষ্ট্য | Advertisement Copy

রেডিও বিজ্ঞাপনের সুবিধা 
রেডিও শোনার সময় একে উপেক্ষা করার কোন সুযোগ থাকে না। কাজ করতে করতে কিংবা গাড়ি চালাতে চালাতেও এর প্রতি মনোযোগ দেয়াই যায়।

(১) রেডিও নিয়ন্ত্রিত বার্তা দেওয়ার সুযোগ থাকে। নির্দিষ্ট ভৌগোলিক ও জনসংখ্যাতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর মধ্যে বিজ্ঞাপন প্রচারের সুবিধা আছে যা অন্য মাধ্যমের নেই। সরাসরি নির্বাচিত ভোক্তার কাছে আবেদন করতে পারে।

Advertisement

(২)রেডিওতে বিজ্ঞাপন প্রচার অন্যান্য মাধ্যমের তুলনায় কম ব্যয়বহুল। খুব কম খরচেই অনেকের কাছে পৌঁছানো যায়।

(৩) রেডিও অনেক দ্রুত মাধ্যম। ঘন্টাখানেকের মধ্যেই চাইলে সরাসরি বা নির্মিত বিজ্ঞাপন প্রচার সম্ভব। পত্রিকা বা টেলিভিশনে এত দ্রুত বিজ্ঞাপন তৈরি করে প্রচার সম্ভব নয়।

(৪) রেডিও অংশগ্রহণমূলক।

লেখার আগে শুরু করুন কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন দিয়ে-

(১) বিজ্ঞাপনের উদ্দেশ্য কী? অর্থাৎ বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কী অর্জন করতে চান।

(২) ভোক্তার কাছে আপনার অফারটি কী?

(৩) লক্ষ্য করা, কাদের জন্য বিজ্ঞাপন?

(৪) শ্রোতাকে দিয়ে কী করাতে চান?

লেখার কয়েকটি ধাপ
(১) লেখার আগে এটা বুঝতে হবে যে পণ্য বা সেবা কী করবে এবং এটা ভোক্তাকে কিভাবে সাহায্য করবে। কীভাবে এই পণ্যটা ভোক্তার জন্য লাভজনক, কীভাবে এটা তাদের প্রয়োজন মেটাবে ও তাদের জীবনকে আরো সহজ করবে তা বুঝাতে হবে। আগে নিজেকে বোঝাতে পারলেই তবে ভোক্তাদের বুঝানো সহজ হয়।

(২) পণ্যের যারা উদ্দিষ্ট ভোক্তা তাদের নিয়ে ভাবতে হবে। পণ্যের ভোক্তা একই রকম নয়।শ্রোতার বয়স,লিঙ্গ,পেশা,আয়, ভৌগোলিক অবস্থান ইত্যাদি মাথায় রাখতে হবে লেখার সময়।

(৩) সেবা বা পণ্যের জন্য একটা উপযুক্ত ফরম্যাটে উপযুক্ত কপি লিখতে হবে। কপির ফরম্যাট যদি পণ্যের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ না হয় তবে বিপণন ব্যর্থ হতে পারে। অনেক ধরনের ফরম্যাট আছে রেডিও বিজ্ঞাপনের জন্য। যেমন –

(ক)সোজাসুজি ঘোষণা – এখানে একজন পণ্য সম্পর্কে শ্রোতাকে সরাসরি বলে যায়।

(খ) কথোপকথন – মানুষ অন্যের কথোপকথন শুনতে ভালবাসে। এই ফরম্যাটে সাধারণত এমন একজন থাকেন যিনি পণ্য সম্পর্কে জানেন, অন্যজন থাকেন যাঁর পণ্যটি প্রয়োজন কিন্তু তিনি পণ্য সম্পর্কে জানেন না।এটাও অনেক কার্যকরী ফরম্যাট।

(গ)ভিগনেট(vignette)- শুরু করা যায় জীবনের কোন ঘটনা বা অংশ দিয়ে যেখানে কোন সমস্যা চলছে। এরপর ঘোষক পণ্যের মাধ্যমে সেই সমস্যার সমাধান দিবে।

(ঘ) প্রশংসা – এখানে পণ্য সম্পর্কিত কোন বিশেষজ্ঞ বা পণ্যের ব্যবহারকারীরা প্রশংসা করবে পণ্যটির।

(ঙ) গল্প – প্রত্যেকেই আমরা গল্প শুনতে পছন্দ করে। গল্পের মাধ্যমে পণ্যকে তুলে ধরা।
এখানে সময় একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়,৩০ সেকেন্ডের বিজ্ঞাপনের জন্যই লিখতে হবে।

(৪) ৩টি কথা খুবই গুরুত্বপূর্ণ –

(ক) একটা চিত্তাকর্ষক সূচনা যা শ্রোতাকে যুক্ত করবে।

(খ) শক্তিশালী অফার যা শ্রোতাকে কেনার আগ্রহ জাগাবে।

(গ) একটা সুস্পষ্ট আহ্বান থাকবে যা শ্রোতাকে পণ্যটি কিনতে প্ররোচিত করবে।

কিছু পরামর্শ যা মনে রাখতেই হবে-

(১) রেডিও জন্য লিখতে এটা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যেন শব্দ দৃশ্যের অভাবকে ছাপিয়ে যায়। শব্দ দিয়েই শ্রোতাকে আকৃষ্ট করতে হবে।

(২) পণ্য বা সেবা কিনতে আগ্রহী করার জন্য উপযুক্ত শব্দ ব্যবহার করতে হবে। যেমন – ক্রিকেট ম্যাচের টিকিটের বিজ্ঞাপনে মাঠের চিৎকারের শব্দ শ্রোতাকে আকৃষ্ট করবেই।

(৩) একটাই ফোকাস পয়েন্ট থাকবে, একাধিক হলে তা শ্রোতাকে দ্বিধায় ফেলে দিবে। পণ্য নয় পণ্যের গুন বিক্রি করতে হবে।

(৪) কপি সহজ ভাষায় লিখতে হবে। সময় অনেক দ্রুত চলে যায়; একবার শুনেই যেন মনে রাখতে পারে।

(৫)পণ্যের নামটি যেন তিন ব্যবহার হয়।শ্রোতার অজান্তেই তার মনে গেঁথে যায় যেন।

(৬)শ্রোতা কেন পণ্যটি কিনবে তা স্পষ্ট করে বলতে হবে।

(৭) বন্ধুর মত শ্রোতাকে পণ্যের সাথে যুক্ত করে দিতে হবে।

সবকিছুর পরেও যে চারটি কারণে বিজ্ঞাপন ব্যর্থ হতে পারে

(১) অনেক বেশি তথ্য – কপি সবসময় সংক্ষিপ্ত, তীক্ষ্ণ ও সরল হবে।

(২) বেশি রস কিংবা চাতুর্য্য – কৌতুক বা রসবোধ ভাল কিন্তু রসবোধের পরীক্ষা দিতে গিয়ে কপি যেন ব্যর্থ না হয়।উদ্দেশ্য পণ্য বিক্রয়।

(৩) কোন অফার ( লাভজনক) না থাকা। অন্য পণ্যের সাথে স্পষ্ট কোন পার্থক্য উল্লেখ না করা।

(৪) কো সরাসরি আহ্বান না থাকা।

রেডিওর জন্য বিজ্ঞাপন

0Like
0Dislike
50% LikesVS
50% Dislikes
Saiful Islam: I am Md. Saiful Islam, Founder of CAJ Academy. I Have Completed my Graduation and Post Graduation from the Department of Communication and Journalism, University of Chittagong. Follow me on facebook : facebook.com/saifcajacademy , Instagram : instagram.com/saif_caj_academy
Advertisement